বুধবার , জুলাই ১৭ ২০১৯

তালায় আদালতের নির্দেশ অমান্য করে খলিলনগর হাইস্কুলে অফিস সহকরী পদে এক তরফা নিয়োগের অপচেষ্টা !


নিজস্ব প্রতিনিধি ::
সাতক্ষীরার তালার খলিলনগর ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে নিয়োগের পায়তারা চালাচ্ছে কতৃপক্ষ। স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মোটা অংকের ঘুষ বাণিজ্যের মাধ্যমে তার পছন্দে’র প্রার্থীকে নিয়োগ দিতে এশর পর এক অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগে বলা হয়েছে। এ ঘটনায় এক প্রার্থী সাতক্ষীরা বিজ্ঞ জেলা জর্জ আদালতে একটি মামলাও করেছেন। মিস আপিল নং ০৮/২০১৯,যা বিচারাধীন রয়েছে।
এব্যাপারে উপজেলার খলিলনগর গ্রামের মোঃ আপ্তাব উদ্দীন মোড়লের ছেলে চাকুরী প্রার্থী মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ মোড়ল জানান, তার পিতা মুক্তিযুদ্ধ ও প্রগতিশীল চেতনায় বিশ^াসী একজন মানুষ। এছাড়া খলিলনগর ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি তার পিতার দানকৃত জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। সম্প্রতি উক্ত স্কুলের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটার পদে নিয়োগ দিলে তিনিও ঐ পদে আবেদন করেন। কিন্তু তাকে কৌশলে বাদ দিয়ে স্কুলের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তার পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ দেয়ার অপচেষ্টা করছে। যার ধারাবহিকতায় গত ২৬ ডিসেম্বর পাতানো নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের জন্য সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।
এমন পরিস্থিতিতে প্রতিকার চেয়ে আব্দুল ওয়াদুদ মোড়ল সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, শিক্ষা কর্মকর্তা, তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি আবেদন করেন। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল অভিযোগটি আমলে নিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ প্রদান করেছিলেন। ঘটনায় বন্ধ থাকে নিয়োগ কার্যক্রম।
ঘটনায় ভুক্তভোগী চাকুরী প্রার্থী সাতক্ষীরা বিজ্ঞ জেলা জর্জ আদালতে একটি মামলা করেন যার নং মিস আপিল নং ০৮/২০১৯ যা চলমান রয়েছে। এদিকে মামলা নিষ্পত্তি কিংবা নতুন নির্দেশনা না নিয়েই উক্ত স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাতক্ষীরা জেলা জর্জ কোর্টের সরকারী কৌশুলী সরকার জামিনী কান্ত’কে ভুল বুঝিয়ে তার নিটক থেকে গত ২৫ এপ্রিল ৩২ নং স্বারকে নিয়োগ বৈধতার একটি মতামত নিয়ে আসেন। বিষয়টি ভুক্তভোগি প্রার্থী মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ মোড়ল জানতে পেরে গত ৬ মে একই কোর্টের সরকারী কৌশুলী সরকার জামিনী কান্তকে জানালে তিনি ৩৬ নং স্বারকে নিয়োগ বৈধতা নেই বলে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, তালা উপজেলা ম্যাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সভাপতি বরাবর নোটিশ প্রেরণ করেন।
তালা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আতিয়ার রহমান অভিযোগ পাবার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সর্বশেষ আদালতের নির্দেশনাকে অমান্য করে কতৃপক্ষ ঐ পদে নিয়োগ পরীক্ষার জন্য আগামী ১২ মে তারিখ নির্দ্ধারণ করেছে বলে জানানো হয়েছে। এব্যাপারে পরীক্ষাকার্যক্রম বন্ধ রাখতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনে তিনি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার