রবিবার , জুলাই ২১ ২০১৯
ব্রেকিং নিউজ

তালার জাতপুরে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় রমরমা মাদক ব্যবসা!

একাধিক থানার সীমানা সংলগ্ন হওয়ায় মাদক বিকিকিনির নিরাপদ স্পট


সাতক্ষীরার তালা উপজেলার জাতপুরসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামে মাদক ব্যবসা রমরমা হয়ে উঠেছে। একটি প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসায়ীরা এখানে ইয়াবা, ফেন্সিডিল ও গাজার রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অভিযোগ উঠেছে, মাদক ব্যবসায়ীরা জাতপুর বাজারে নাম সর্বস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে ব্যবসার আড়ালে চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসা। এতে এলাকার কেহ বাঁধা দিতে আসলে তারা নানাবিধ হয়রানিসহ হামলা ও মামলার শিকার হচ্ছে। তালা থানা পুলিশের কর্তা ব্যক্তিদের সাথে ওই সকল মাদক ব্যবসায়ীদের সখ্যতা প্রকাশ্য থাকায় এখন কেহ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। প্রকাশ্য মাদক বিকিকিনি ফলে এলাকায় আইন শৃঙ্খলার অবনতি হওয়া হ যুব সমাজ চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, যশোরের কেশবপুর, খুলনার ডুমুরিয়া ও পাইকগাছা উপজেলার নিকটবর্তীতে অবিস্থত তালার জাতপুর বাজার। এছাড়া সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরা থেকেও জাতপুর বাজার নিকটবর্তী এবং এখানে যাতায়াতের জন্য একাধিক থানা ও জেলা সদরের সাথে রয়েছে একাধিক সড়কপথ। যে কারণে মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে জাতপুর বাজার নিরাপদ স্থান হওয়ায় এখানকার একাধিক স্থানে গড়ে উঠেছে মাদক বিকিকিনির স্পট! ফলে, জাতপুর বাজার সংলগ্ন কয়েকটি গ্রামের মাদক ব্যবসায়ীরা অন্য জেলা ও উপজেলার মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে সখ্যতা গড়ে এই বাজার থেকে বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা, ফেন্সিডিল ও গাজা সরবারহ করছে ।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাজার সংলগ্ন বসবাসকারী এক মহিলা বলেন, মাদক ব্যবসা চালিয়ে এলাকার অনেকেই মুহুর্তের মধ্যে লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক হয়ে উঠেছে। তারা বাজারে নাম মাত্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে মূলত সেখানে বসে জাতপুর বাজার সহ আশপাশের এলাকায় মাদক বেচাকেনার চুক্তি করে। এটা জানার পরও তালা থানা পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কার্যক্রম কোনও ব্যবস্থা না নেয়ায় মাদক ব্যবসায়ী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এই সকল মাদক ব্যবসায়ীরা স্থানীয় একটি রাজনৈতিক মহল এবং উপজেলা পর্যায়ের প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের শেল্টারে থেকে এলাকার সাধারন মানুষের উপর একচ্ছত্র আধিপাত্য বিস্তার করে যাচ্ছে। এলাকার জমি জোর দখল, পরিবারের মধ্যে বিরোধ বাধিয়ে দেয়া, বিভিন্ন ব্যক্তিকে মামলায় জড়িয়ে দেয়া, মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ কারীদের উপর হামলাসহ নানাবিধ হুমকি দিয়ে সাধারন মানুষকে জিম্মি করে নিজেদের মাদক ব্যবসা নিরাপদ রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই সকল মাদক ব্যবসায়ী ও তাদের গড ফাদারদের মধ্যে কেউ সাজাপ্রাপ্ত আসামী আবার কারো বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধের একাধিক মামলা বিচারাধিন রয়েছে।
ওই মহিলা জানান, সম্প্রতি জাতপুর বাজারের এক মাদক ব্যবসায়ী অবৈধ ক্ষমতা ও টাকার জোরে অন্যের জমি জোর দখলের পরিকল্পনা করে। বিষয়টি জানতে পেরে জাতপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এস.আই সাহিদুর রহমান জোর দখল ঠেকানোর জন্য ঘটনাস্থলে গেলে ওই মাদক ব্যবসায়ী প্রকাশ্যে এস.আই সাহিদুরকে অপদাস্থসহ লাঞ্চিত করে এবং তাকে দেখে নেবার হুমকি দেয়। মাদক ব্যবসায়ী ও তাদের গডফাদাররা প্রভাবমালী হওয়ায় এস.আই সাহিদুর রহমান ঘটনাস্থল থেকে চলে যেতে বাধ্য হয়।
চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী কর্তৃক চৌকোস পুলিশ অফিসার লাঞ্চিত হওয়া, এলাকায় রমরমা মাদক ব্যবসা চালানো, মাদক ব্যবসায়ীদের আস্ফালন এবং তাদের হামলা ও হুমকির কারণে এলাকার সাধারণ মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষ অবিলম্বে মাদক ব্যবসায়ী ও তাদের দোসরদের বিরুদ্ধে জোরালো অভিযান চালানোর জন্য সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ উর্দ্ধতন পুলিশ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যপারে তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মেহেদী রাসেল বলেন, মাদক ব্যবসায়ীদের আটক এবং মাদক উদ্ধারের জন্য জাতপুরসহ আশপাশের এলাকায় বিভিন্ন সময়ে অভিযান চালানো হয়। দফায় দফায় চালানো অভিযানে ইয়াবা, ফেন্সিডিল ও গাজা উদ্ধারসহ একাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। অন্য মাদক ব্যবসায়ীদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
তবে, তালা থানা ওসির এমন আশাবাদী বক্তব্যে জাতপুর এলাকার সাধারণ মানুষ ও অভিভাবকরা আশ্বস্ত হতে পারেনি। তাদের অভিযোগ, মাদক ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় মাদক বিকিকিনি করে। আর যারা মাদক বিকিকিনির সাথে জড়িত তারা প্রতিনিয়ত থানায় যাতায়াত করে এবং পুলিশের সাথে তাদের ব্যাপক সখ্যতা দেখা যায়। থানা পুলিশ মাঝে মাঝে মাদক উদ্ধারসহ মাদক সেবী ও বিক্রেতাদের আটক করলেও প্রধান মাদক ব্যবসায়ীরা এবং তাদের গড ফাদাররা থাকছে ধরা ছোয়ার বাইরে। যে কারণে এলাকা থেকে মাদক বিকিকিনি নির্মূল হচ্ছে না।
মাদকের ভয়াবহতার কারনে মাদক বিরোধী অভিযান জোরদার, মাদক ব্যবসায়ী ও সেবীদের আটকের জন্য উর্দ্ধতন পুলিশ প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করে সংশ্লিষ্ট এলাকার একাধিক যুবককে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে স্ট্যাটাস লিখতে দেখা গেছে। বি. এম. বাবলুর রহমান নামের এক আইনজীবী সহকারী তার ফেসবুক পেজে ক্ষোভ প্রকাশ করে মাদকের বিরুদ্ধে এমনই এক স্ট্যাটাস প্রকাশ করতে দেখা গেছে। আবার এই স্ট্যাটাসের কারণে সে হামলা, হুমকি ও হয়রানীর শিকার হতে পারে বলেও সেখানে সে আশংকা ব্যক্ত করেন।

শেয়ার