শুক্রবার , মে ২৪ ২০১৯

‘স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় প্রস্তুত থাকতে হবে’


নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম :
নতুন কমিশনপ্রাপ্ত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সজাগ ও সদা প্রস্তুত থাকতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তোমাদের ওপর রয়েছে দেশ রক্ষার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। এটাকে প্রধান ও প্রথম ব্রত করতে হবে। মনে রাখতে হবে অনেক রক্তের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে আমাদের স্বাধীনতা। এই স্বাধীনতাকে অর্থবহ করতে কাজ করে যেতে হবে। সর্বোচ্চ ত্যাগের বিনিময়ে দেশের স্বাধীনতার মর্যাদা সমুন্নত রাখতে হবে।’

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে (বিএমএ) বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৭৫তম বিএম দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের অফিসার ক্যাডেটদের কমিশনপ্রাপ্তি উপলক্ষে আয়োজিত রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ পরিদর্শন এবং অভিবাদন গ্রহণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সেনাবাহিনীর সঙ্গে আমার পারিবারিক সম্পর্ক। আমার দুই ভাই সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা ছিল। ছোট ভাই শেখ রাসেলের ইচ্ছা ছিলো বড় হয়ে সেনাবাহিনীতে চাকরি করার। কিন্তু ৭৫ এর ১৫ আগস্ট আমার পরিবারের সকলকে হারিয়েছি। কেবল আমরা দুই বোন বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ১১ জানুয়ারি বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমির প্রথম ব্যাচের অফিসারদের কমিশনপ্রাপ্তির সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নবীন সামরিক অফিসারদের নৈতিক গুণাবলি সম্পন্ন এবং দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সেদিনের সেই দূরদৃষ্টি সম্পন্ন বক্তব্য এবং ১৯৭৪ সালের প্রতিরক্ষা নীতির অনুসরণে বর্তমান সরকার ‘ফোর্সেস গোল’ তৈরি করেছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তির দিক থেকে এক দশক আগের সেনাবাহিনীর থেকে বর্তমান বাহিনী অনেক বেশি আধুনিক, স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং চৌকস।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতিসংঘ শান্তি রক্ষায় আমাদের সেনাবাহিনী প্রসংশনীয় ভূমিকা রাখছে, বিশ্বের সকলে শান্তির প্রতীক হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে জানবে। দেশের সকল প্রয়োজনে সেনাবাহিনীর সদস্যরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।’

রোহিঙ্গা বিষয়ে সেনাবাহিনীর ভূমিকার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র স্থাপন, শৃঙ্খলতার সঙ্গে ত্রাণ বিতরণ এবং তাদের পরিচয়পত্র তৈরিতে সেনাবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।’

দুর্গম পার্বত্য এলাকায় সড়ক ও অবকাঠামো, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মহাসড়ক, সেতু ও ফ্লাইওভার নির্মাণ এবং ভোটার তালিকা ও মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট তৈরিতেও সেনাবাহিনী দক্ষতা দেখিয়েছে।

অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ৭৫তম বিএম দীর্ঘমেয়াদী কোর্সের অফিসার ক্যাডেটদের মধ্যে সব বিষয়ে দক্ষতা প্রদর্শন ও শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করায় ব্যাটেলিয়ন সিনিয়র অফিসার সাদমানুর রহমান সোর্ড অব অনার এবং সেনা প্রধান স্বর্ণ পদক অর্জন করেন।

শেয়ার